1. khansalimrahman@gmail.com : matrijagat : Daly matrijagat
  2. doynikmatrijagat@gmail.com : matrijagat1 :
  3. banglahost.net@gmail.com : rahad :
  4. raselisdnews@gmail.com : রাসেল ঈশ্বরদী বিশেষ প্রতিনিধিঃ : matrijagat1 matrijagat
তামাবিল মহাসড়কে রমরমা টোকেন বাণিজ্যে: বেপরোয়া টোকেন সিন্ডিকেট চক্র! - দৈনিক মাতৃজগত
নোটিশ:
বহুল জনপ্রিয় জাতীয় দৈনিক মাতৃজগত পত্রিকা ও জনপ্রিয় আইপি টেলিভিশন মাতৃজগত টিভিতে সংবাদকর্মী নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। সারা বাংলাদেশে বিভিন্ন জেলায়, উপজেলায়, জেলা ব্যুরো প্রধান ও বিভাগীয় ব্যুরো প্রধানে কাজ আগ্রহী প্রার্থীগণ সিভি পাঠাতে পারেন। ইমেইল: doynikmatrijagat@gmail.com যোগাযোগ নাম্বার: 01712-608880, 01613-060606
শিরোনাম :
সাতক্ষীরায় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের মানববন্ধন অনুষ্ঠিত সোনারগাঁ মোগরাপাড়া চৌরাস্তা থেকে পুরুষাঙ্গ কাটা মাদ্রাসা ছাত্র উদ্ধার জামালপুরের ইসলামপুরে সদ্যনিযুক্ত ধর্ম প্রতিমন্ত্রীকে বিশাল সংবর্ধনা ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা ও মুক্তির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন আশুলিয়ায় শেখ মনির ৮১ তম জন্মদিন পালন জাতীয় দৈনিক মাতৃজগত পত্রিকার সহ-ব্যবস্থাপনা সম্পাদক ও মাতৃজগত আইপি টিভির পরিচালক হিসাবে নিয়োগ পেলেন, মাহি গজারিয়ায় শেখ মনির জন্মদিনে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত দৈনিক ঈশ্বরদী নিউজ অনলাইন পত্রিকার প্রতিনিধিদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত গুণিজন সম্মাননা পেলেন দৈনিক ক্রাইম সংবাদ পত্রিকার মফস্বল সম্পাদক মোঃ মাহিদুল হাসান মাহি পাবনা সুগার মিল বন্ধের প্রতিবাদে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ

তামাবিল মহাসড়কে রমরমা টোকেন বাণিজ্যে: বেপরোয়া টোকেন সিন্ডিকেট চক্র!

মোঃরায়হান হোসাইন (মান্না),সিলেট জেলা বিশেষ প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২০
  • ৪৪ বার

নতুন সড়ক পরিবহন আইনের পর অনেকেই ভাব ছিলেন (কুদ্দুস, নাজিম, ইয়াহিয়া ও জয়নাল) এর টোকেন বিক্রি বন্ধ হতে পারে। সম্প্রতি একটি অনুষ্টানে সিলেট জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন নম্বরবিহীন সিএনজি বন্ধের নির্দেশ দেন। কিন্তু টোকেন (কুদ্দুস, নাজিম, ইয়াহিয়া ও জয়নাল) এসপির নির্দেশকে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে সিলেট জেলার জৈন্তাপুর, গোয়াইনঘাট, কানাইঘাট ও শাহপরান সড়কে প্রায় তিন হাজার অবৈধ রেজিস্ট্রেশন বিহীন (নম্বরবিহীন) সিএনজি চালিত অটোরিক্সা (কুদ্দুস, নাজিম, ইয়াহিয়া ও জয়নাল) এর বিশেষ টোকেনের মাধ্যমে দেদারছে চলাচল করছে। মাঝেমধ্যে প্রশাসনের অভিযানে দু’চারটি নম্বরবিহীন অটোরিক্সা আটক হলেও অদৃশ্য কারণে অভিযানগুলো থেমে যায়!
ফলে এই তিন সড়কে নম্বরবিহীন অটোরিক্সা চলাচলে বাধা থাকছে না কোথাও।

সরেজমিন অনুসন্ধান নামে টিম। উটে আসে সিলেটের জৈন্তাপুর, গোয়াইনঘাট, কানাইঘাট ও শাহপরান উপজেলার ৪ সড়কের টোকেন বাণিজ্যের প্রদান (কুদ্দুস, নাজিম, ইয়াহিয়া ও জয়নাল) সহ সিন্ডিকেটের কয়েকজনের নাম।

জানা গেছে, এই চার সড়কে রেজিস্ট্রেশনবিহীন সিএনজি অটোরিক্সার সংখ্যা প্রায় আড়াই হাজারেরও বেশী। আর অবৈধ গাড়িগুলো চলছে বিশেষ টোকেন’র মাধ্যমে। টোকেন বাণিজ্য করে মাসে লাখ লাখ ও বছরে কোটি টাকারও বেশি হাতিয়ে নিচ্ছে (কুদ্দুস, নাজিম, ইয়াহিয়া ও জয়নাল) সিন্ডিকেট। অবৈধ এই কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে এ্যাকশন নিতে সাহস যেন কারই নেই!

টোকেন সিন্ডিকেট প্রদানের নাম (কুদ্দুস, নাজিম, ইয়াহিয়া ও জয়নাল) উরফে টোকেন (কুদ্দুস, নাজিম, ইয়াহিয়া ও জয়নাল)।

টোকন কুদ্দুস জৈন্তাপুর উপজেলার হেমু হাদপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল মজিদের পুত্র। টোকন নাজিম পীরেরবাজার হাতুড়া গ্রামের বাসিন্দা ও পীরেরবাজার সিএনজি স্টেনের ভূঁইফোড় শ্রমিক নেতা। জয়নাল আহমেদ বটেশ্বর বাজার সিএনজি উপ-পরিষদের সাবেক সভাপতি ও সিলেট জেলা সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়নের বর্তমান জেলার মেম্বার ও ইয়াহিয়া হরিপুর বাজারের বিশিষ্ট চোরাচালান কারবারির গডফাদার এবং একাধিক চোরাচালান মামলার আসামী।

এই চার জনের ইশারায় এই চার সড়কে দীর্ঘদিন দিন থেকে চলছে নম্বরবিহীন অটোরিক্সা। পরিচিতি শুধু টোকেন। তবে, তারা টোকন বিষয়টি অস্বীকার করেছেন। বলেছেন, সদর উপজেলার একটি ইউনিয়ন পরিষদের এক চেয়ারম্যানের নাম।

জানা যায়, এই সড়কগুলোতে রেজিস্টেশনবিহীন অটোরিক্সা চলতে প্রতিটি সিএনজি অটোরিক্সাকে প্রতি মাসে কিনতে হয় ৫শ’ থেকে ১৫শ’ টাকার টোকেন। আদায়কৃত এই চাঁদা থেকে নম্বর ও রেজিষ্ট্রেশনবিহীন অবৈধ সিএনজি অটোরিক্সা চলাচলের জন্য বিআরটিএ এবং প্রশাসনের কিছু অসাধু কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করা হয়ে থাকে বলে বিশ্বস্থ একটি সূত্র তা নিশ্চিত করেছে।

সরেজমিন অনুসন্ধান ও খোঁজ নিয়ে জানা যায়, টোকেন বাণিজ্যের মূলহোতা (কুদ্দুস, নাজিম, ইয়াহিয়া ও জয়নাল) ও তাদের গড়ে তোলা সিন্ডিকেটের কয়েকজন মিলে তাদের বড় একটি সিন্ডিকেট। এই তিন উপজেলার সব ক’টি সড়কের নিয়ন্ত্রকরা রেজিস্টেশনবিহীন সিএনজি অটোরিক্সা (অনটেষ্ট) গাড়িতে টোকেন লাগিয়ে দিলে সেটি চলাচলের জন্য বৈধ হয়ে যায়!

সিএনজি অটোরিক্সা তাদের মাধ্যমে চলাচলে প্রথমে এককালীন ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা চাঁদা নেওয়ার পর সংশ্লিষ্ট প্রতিটি সিএনজি অটোরিক্সার জন্য একটি টোকেন বরাদ্দ দেওয়া হয়। এই টোকেন অটোরিক্সার সামনের গ্লাসে লাগিয়ে দিলে গাড়িগুলো সড়কে চলতে আর কোনো অসুবিধা থাকেনা। এই উপজেলাগুলোতে এমন অটোরিক্সার সংখ্যা প্রায় তিন হাজার যা অনুসন্ধানে উঠে এসেছে।

সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানায়, বিআরটিএ’র পক্ষ থেকে নতুন সিএনজি চালিত অটোরিক্সার নিবন্ধন বন্ধ থাকায় এই চার উপজেলার সব সড়কের নম্বরবিহীন অটোরিক্সা চলাচলের জন্য টোকেন বাণিজ্য গড়ে তুলেন টোকন (কুদ্দুস, নাজিম, ইয়াহিয়া ও জয়নাল) ও তাদের বাহিনী।

শুধু তাই নয় টোকন নাজিম দাবী করেন সিলেটের প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ থানা পুলিশের সব সেক্টরে টোকেন বাণিজ্য করে আদায়কৃত টাকার ভাগ দিয়েই টুকেন ব্যবসার অনুমতি নিয়েছে তারা। তাই তাদের দেয়া পরিচিতি টোকেন নিতে পারলেই জৈন্তাপুর, গোয়াইনঘাট ও কানাইঘাট রোডে অবৈধ নম্বরবিহীন অটোরিক্সা চলতে বাধা থাকেনা। অন্যথায় কেউই রেজিস্ট্রেশনবিহীন সিএনজি অটোরিক্সা চালাতে পারেবে না বলে জানায় কয়েকজন চালক।

তবে, থানা পুলিশের সাথে এব্যাপারে কথা হলে তারা টোকেন বাণিজ্যের বিষয়টি জানেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন তারা।

গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় দেখা গেলো (কুদ্দুস, নাজিম, ইয়াহিয়া ও জয়নাল) বাহিনীর টোকেনের বাস্তব শক্তি। অনুসন্ধান থেকে ফেরার পথে শাহপরান (রহ.) থানাধীন সদর-জৈন্তিয়া সীমান্তে ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড স্কুলের সামনে পুলিশ সিগনাল দেখে এখানে ঘন্টা খানেক থেমে যায় অনুসন্ধানি টিম।

ঘন্টাব্যাপী দেখা যায়, একের পর এক নম্বরবিহীন সিএনজি চালিত অটোরিক্সা সিলেট সদর উপজেলাধীন ‘পীরের বাজার ও সুরমা গেইট’ সিএনজি স্টেশনে গ্যাস নিতে আসা অটোরিক্সাগুলো পুলিশ সিগনালে পড়ে। কিন্তু সিএনজিতে থাকা যাত্রীদের তল্লাসী করে অবৈধ গাড়িগুলোর বৈধ কাগজপত্র যাচাই করা তো দুরের কথা চালককে একবার জিজ্ঞাসাও করছেন না পুলিশ সদস্যরা। শুধু সাইড করে যাচাই করা হচ্ছে বৈধ গাড়ির কাগজপত্র!

ছাড় পাচ্ছে টোকন (কুদ্দুস, নাজিম, ইয়াহিয়া ও জয়নাল) এর টোকেন’র গাড়িগুলো! এব্যাপারে কথা বলতে এগিয়ে যাওয়ার আগেই পুলিশ চলে যায়।

এদিকে, বৈধ সিএনজি চালক সমিতির নেতৃবৃন্দরা জানান, বিআরটিএ ও প্রসাশনের কিছু অসাধু কর্মকর্তাদের সাথে সক্ষতা থাকায় এই টোকেন বাণিজ্যের হোতাদের অবৈধ এ বাণিজ্য আজো বন্ধ হচ্ছে না। এদিকে এই সব রেজিস্ট্রেশন বিহীন (অনটেস্ট) সিএনজি অটোরিক্সার টোকেন ব্যবসায়ীরা বাণিজ্য করে নিজেরা কোটি কোটি টাকার মালিক বনে গেছেন। অন্যদিকে এই টাকা টোকেন ব্যবসায়ীরা আত্মসাৎ করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
অনুমতি ছাড়া লেখা ও ছবি অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By matrijagat.com